মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

সিটিজেন চার্টার

বাংলাদেশহাউসবিল্ডিংফাইনান্সকর্পোরেশন

স্থাপিতঃ১৯৫২ইং

সিটিজেনচার্টার

১. ঋণপ্রাপ্তিরযোগ্যতাঃ

(ক)প­ট/জমির মালিকানা (খ) প্রাথমিক বিনিয়োগ সামর্থ্য (প্রাক্কলিত ব্যয়ের কমপক্ষে ২০%)

(গ)বাংলাদেশের নাগরিক।

 

২. ঋণ আবেদনের সাথে যে সমস্ত দলিল পত্রাদি/কাগজ পত্রাদি জমাদিতে হবেঃ

(ক)সরকারী/জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষ/রাজউক/সিডিএ/কেডিএ/আরডিএ/ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড/হাউজিং সোসাইটি কর্তৃক বরাদ্দকৃত/লীজ প্রদত্ত জমির ক্ষেত্রেঃ

১.মূল বরাদ্দ পত্র (এলোর্টমেন্টলেটার) যদি থাকে;

২.দখল হস্তান্তর পত্র(পজেশন লেটার) যদি থাকে;

৩.মূললীজ দলিল ও এর একটি ফটোকপি (১ম শ্রেণীর গেজেটেড কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত), মূল দলিল রেজিস্ট্রী অফিস থেকে পাওয়া না গেলে দলিল উঠানোর মূল রশিদ ও একটি সার্টিফাইড কপি।

৪.প্রস্তাবিত জমি কর্পোরেশনের নিকট বন্ধক রাখার ব্যাপারে অনাপত্তি পত্র (এন.ও.সি) বন্ধক অনুমতিপত্র।

 

(খ)বেসরকারী/ব্যক্তি মালিকানাধীন জমির ক্ষেত্রেঃ

            ১.আবেদনকারীর মূল মালিকানা দলিল (সাফ-কবলা/দানপত্র/বন্টননামা);

            ২.সি.এস,এস.এ,আর.এসওসিটি জরীপ (প্রযোজ্যক্ষেত্রে)খতিয়ানের সার্টিফাইড কপি;

            ৩.নামজারীর খতিয়ানসহ ডি.সি.আর ও হালনাগাদ খাজনা পরিশোধের রশিদ;

 ৪.এস.এ/আর.এস রেকর্ডীয় মালিক থেকে¯^‡Z¡i ধারাবাহিকতা প্রমাণের জন্য চেইন অব ডকুমেন্টস (দলিল/পর্চা) এর সত্যায়িত ফটোকপি;

 5.জেলা রেজিস্ট্রার/সাব-রেজিস্ট্রারের অফিস থেকে পূর্ববর্তী১২ (বার) বছরের তল্লাশীসহ নির্দায় সার্টিফিকেট (এন.ই.সি)

 

(গ)সরকারী/বেসরকারী উভয় ক্ষেত্রে নিম্নের কাগজপত্রা দিও দাখিল করতে হবেঃ

১।যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে নির্মিতব্য বাড়ীর নকাশার অনুমোদনপত্র সহ ২ (দুই) কপি নকশা

২।ঢাকা ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন সিটির ক্ষেত্রে জমির সয়েলটেস্ট রিপোর্ট;

৩।বহু তল বাড়ী নির্মাণের ক্ষেত্রে উপযুক্ত প্রকৌশলী কর্তৃক দেয়া ২ কপি স্ট্রাকচারাল ডিজাইন ও ভার বহন সনদ;

৪।গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার উল্লেখ পূর্বক ২ (দুই) কপি হাতে আঁকা সাইটম্যাপ;

৫।ঋণ আবেদনকারীর ৩ (তিন) কপি পাসপোর্ট সাইজের সত্যায়িত কপি ও সাদা কাগজে সত্যায়িত¯^v¶i;

৬।আবেদনকারীর আয়ের প্রমানপত্র ও চাকুরীর ক্ষেত্রে ঋণ আবেদন পত্রের ফর্মের নির্দিষ্ট পাতায় বেতন সনদ এবং ব্যবসায়ের ট্রেড লাইসেন্সসহ  আয় এর প্রমাণপত্র।

৭।বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইনান্স কর্পোরেশন বাংলাদেশের সর্বত্র কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে । স্থান/এলাকা ভেদে ঋণের পরিমাণে কিছুটা ভিন্নতা রয়েছে। বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে/এলাকা ভেদে ঋণের সিলিং  নিম্নরূপঃ

 

 

প্রতি ইউনিট সর্বনিম্ন ৫৫০বঃফুট থেকে সর্বোচ্চ ১০০০ বঃফুঃ

ঋণ প্রাপ্তির জন্য ফি-সমূহঃ                                                              ঋণের সুদের হারঃ

১।আবেদন ফিঃপ্রতি হাজারে ৩/-টাকা।                              ১।ঢাকাওচট্টগ্রামমেট্রোপলিটনএলাকায়১২%।      

২।পরিদর্শন ফিঃ প্রতি হাজারে ৩/-টাকা।                             ২।অন্যান্যবিভাগ,জেলাওউপজেলাসদরেঃ১০%।  

৩।বাড়ী/ফ্লাট হস্তান্তর ফিঃ৭৫০০/-টাকা।

৪।বিভাজন ফিঃ৩০০০/-টাকা।                                                    ফ্ল্যাটঋণেরক্ষেত্রেঃ

৫।ঋণ আবেদন পত্রের মূল্যঃ৫০০/-টাকা।                                       ১।আবেদনপত্রেরমূল্য১০০০/-টাকা(প্রতিটি)

৬।হস্তান্তর আবেদন পত্রের মূল্যঃ২৫০/-টাকা(প্রতিটি) ২।আবেদন ফি ও পরিদর্শন ফি প্রতি হাজারে ৫/-

 

বিঃদ্রঃঋণের সিলিং, সুদের হার এবং অন্যান্য ফি এর পরিমাণ সময়ে সময়ে পরিবর্তন যোগ্য।

 

 



Share with :

Facebook Twitter